বাংলার শাসক


খিৃষ্টপূর্ব যূগে

আর্য
শাসন প্রতিষ্ঠা করেনি

খিৃষ্টপূব ৩ শতক

বাংলার  উত্তরাংশ
মৌয্য সম্রাট
অশোক
পুন্ড্রবর্ধনভুক্তি প্রদেশে

৪শতক

উত্তর বাংলা ও দক্ষিণ-পূর্ব বাংলার কিছু অংশ
গুপ্ত সাম্রাজ্য

৭শতক

উত্তর বাংলা
প্রথম বাঙালির স্বাধীন রাজ্য
রাজা শশাঙ্ক
তার রাজত্ব দীর্ঘ স্থায়ী হয়ন
তিনি বাংলার বিভিন্ন ক্ষুদ্র রাজ্যকে একত্র করে গৌড় নামের জনপদ গড়ে তোলেন
শশাঙ্কের মৃত্যুর পর
১০০ বছর
অরাজকতা চলতে থাকে
মাৎসন্যায়ের যুগ

৮শতকের মাঝ পর্বে
বাঙালির দীর্ঘ স্থায়ী রাজ্য প্রতিষ্ঠিত হয়
প্রায় ৪০০ বছর শাসন করেন
বাঙালি পাল রাজারা
১১শতকের শেষদিকে
পালদের পতনের পর
আবার বিদেশি শাসন
দক্ষিন ভারতের কর্ণাটক
ব্রাহ্মণ সেন রাজারা
১২০৪ থেকে ১২০৬
মুসলিম শক্তি তুর্কি সেনাপতি
ইখতিয়ার উদ্দিন মোহাম্মদ বিন বখতিয়ার খলজি
দখল করেন বাংলার এক ছোট্ট অংশ: পশ্চিমে নদীয়া ও উত্তর বাংলার কিছুটা অংশ
পূর্ব বাংলা এর অনেক কাল পর পর্যন্ত সেন শাসকদের অধীনে ছিল
বখতিয়ারের মধ্য দিয়ে বাংলায় তুর্কি সুলতানদের শাসনের পথ প্রসস্ত হয়
১২০৬ ১৩৩৮
বাংলা জুড়ে মুসলিম শাসনের বিস্তার ঘটতে থাকে
বাংলার  তিনটি অংশে দিল্লীর মুসলিম সুলতানদের তিনটি বিভাগ, প্রদেশ বা ইকলিম প্রতিষ্ঠিত হয়
১. উত্তর বাংলা জুড়ে প্রতিষ্ঠিত ছিল ইকলিম লখনৌতি,
২. পশ্চিম বাংলায় ইকলিম সাতগাঁও এবং
৩. পূব  বাংলায় ইকলিম সোনারগাঁও
১৩৩৮
সোনারগাঁওয়ের শাসনকর্তা
ফকরুদ্দিন মুবারক শাহ
দিল্লির মুসলমান সুলতানদের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করে
স্বাধীনতা ঘেষনা করেন
প্রতিষ্ঠিত হয় বাংলায় ২০০শ বছরের স্বাধীন সুলতানি যুগ পর্ব
১৫৩৮ সালে
অবসান ঘটে বাংলার স্বাধীন সুলতানি শাসন
সুলতানগন বহিরাগত অবাঙালি শাসক হলেও এদেশে সুশাসন প্রতিষ্ঠ করে ছিলেন এবং কেউ নিজ দেশে ফিরে যাননি
এর আগেই বিদেশি মোঘালরা দিল্লি দখল করেছিল
১৫৩৮
মোঘাল সম্রাট হুমায়ুন
উত্তর বাংলার গৌড় অর্থাৎ ইকলিম লখনৌতি দখল করলেও বাংলায় তখন মোঘল শাসন প্রতিষ্ঠা করতে পারেন নি
কারন বিহারের আফগান শাসক
শের খান সুর হুমায়ুনকে
প্রথমে বাংলা ও পরে ভারত থেকে বিতাড়িত করেন
এ পর্বে আফগানদের হাতে চলে যায বাংলা
১৫৭৬
ভারতে মোঘলরা আবার সংগঠিত হয়
সম্রাট আকবরের সময়
পশ্চিম বাংলা ও উত্তর বাংলার অনেকটা অংশ
মোঘলদের অধিকারে চলে আসে
পূববাংলা অর্থাৎ আজকের বাংলাদেশ অংশ
বারাভুঁইয়া নামে পরিচিত পূর্ববাংলার জমিদাররা
একযোগে মোঘল আক্রমন প্রতিহত করেন
আকবরের সেনাপতি মানসিংহ
কয়েকবার চেষ্টা করেও
বারোভুঁইয়াদের নেতা ঈশা খাঁকে পরাজিত করতে পারেননি
১৬১০
সম্রাট জাহাঙ্গীরের আমলে
মোঘল সুবেদার ইসলাম খান চিসতি বারো ভুঁইয়াদের পরাজিত করে ঢাকা অধিকার করেন,
এভাবেই বাংলায় মোঘল অধিকার সম্পন্ন হয়
এই বিদেশি মোঘল শাসন চলে ১৮শতকের মাঝপর্ব পযর্ন্ত
১৫শতকের শেষভাগ থেকে
বাংলায় ইউরোপীয় ব্যবসায়ীদের আগমন
ধীরে ধীরে তাদের প্রভাব বাড়তে থাকে
১৭৫৭
ব্রিটিশ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি
পলাশীর যুদ্ধে জয়লাভের মাধ্যমে
বাংলার শাসনক্ষমতা দখল করে
প্রথমে বাংলা এবং পরে
ভারত উপমহাদেশে
ইংরেজ শাসন ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করে
১৮৫৭
সিপাহী বিপ্লব
কোম্পানির হাত থেকে
বাংলার শাসনভার ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের সরাসরি নিয়ন্ত্রণে আসে
ব্রিটিশ রাজার নিয়ন্ত্রণাধীন
একজন ভাইসরয় প্রশাসন পরিচালনা করতেন
এই শাসন চলে ১৯৪৭ সাল অব্দি
১৯৪৭
পূর্ব পাকিস্তান
১৯৭১
বাংলাদেশ

No comments:

Post a Comment